HeaderDesktopLD
HeaderMobile

এবার পুজোয় অভিনব চমক দিলেন ডিজাইনার সোমা ভট্টাচার্য

0
পুজো মানেই নতুন কিছু চাই ইয়াং জেনারেশনের। বিশেষ করে শাড়ির ক্ষেত্রে একটু এক্সপেরিমেন্ট করতে না পারলে যেন মন ভরে না। এই প্রজন্মের স্টাইলিশ মেয়েদের জন্য এক্সপেরিমেন্টাল শাড়ি তৈরি করে পুজোর বাজারে হইচই ফেলে দিয়েছেন ডিজাইনার সোমা ভট্টাচার্য। পুজো কালেকশন নিয়ে তাঁর সঙ্গে কথা বললেন সোমা লাহিড়ী।এবার পুজোটা কি গত বছরের তুলনায় কিছুটা আশাব্যঞ্জক মনে হচ্ছে তোমার?
ডিজাইনার সোমা- কিছুটা তো বটেই। এবার অনেকেরই দুটো ভ্যাকসিন নেওয়া হয়ে গেছে। কোভিডের দাপটও কিছুটা কম। মানুষ বেরোচ্ছেন, কেনাকাটা করছেন। মনটাও পুজোর ছন্দে নেচে উঠছে। বিশেষ করে ইয়াং জেনারেশন তো এখন উৎসবের মেজাজে।
তোমার শাড়ির অ্যাডমায়ারার তো এ প্রজন্মের মেয়েরাই। তাই না?
ডিজাইনার সোমা- তা বলতে পারো। তবে এখন স্টাইলিশ মিডল এজেড মহিলারাও শাড়ি নিয়ে এক্সপেরিমেন্ট করতে পছন্দ করছেন। এবার আমার পুজো কালেকশন সব বয়সের সবার পছন্দ হবে।
কী ধরনের শাড়ি করেছ একটু বলবে?
ডিজাইনার সোমা- আমি মূলত হালকা ওজনের শাড়ি সাজাতে ভালোবাসি। তাই পিওর অরগ্যঞ্জা, পিওর জর্জেট, নেট ইত্যাদি আসে ফ্যাব্রিক হিসেবে। পুজোয় যাঁরা একটু দামি শাড়ি কিনতে চান তাঁদের জন্য বানিয়েছি পিওর স্যাটিন, পিওর সিল্ক, ভালো কোয়ালিটির হ্যান্ডলুম-সিল্ক ফ্যাব্রিকের শাড়ি।সাদা নেটের শাড়িটা নাকি তোমার এবছরের পুজো স্পেশাল?
ডিজাইনার সোমা- একেবারে আইভরি হোয়াইট নেট নিয়ে এবার এক্সপেরিমেন্ট করেছি। লেসের বর্ডার আর আঁচল দেওয়ায় শাড়িটার গেটআপ পুরো বদলে গেছে। পুজোর সন্ধেবেলা বন্ধুদের সঙ্গে পার্টি তো থাকেই। তার জন্য এইরকম একটা শাড়ি চাইই।
আর প্রিন্ট?
ডিজাইনার সোমা- পুজো মানেই ফ্লোরাল প্রিন্ট একথা অস্বীকার করা যায় না। পেস্টাল শেডের অরগ্যঞ্জায় ডিজিটাল ফ্লোরাল প্রিন্ট আমার হটকেক আইটেম। রোজ-পিঙ্ক কালারের একটা পিওর অরগ্যঞ্জা শাড়িতে আমি গোল্ডেন জরি দিয়ে বর্ডার করেছি। পুজোয় যাঁরা গর্জিয়াস লুক চান তাঁদের পছন্দ হবেই।
তোমার পুজোর কালেকশনে এমব্রয়ডারি বেশ গুরুত্ব পেয়েছে। কেন?
ডিজাইনার সোমা- আসলে পুজোর পরেই বিয়ের সিজন চলে আসে। সকলেই চান বিয়েবাড়ি বা পার্টিতে পরার মতো ডিজাইনার শাড়ি। এখন শুধু গোল্ডেনই নয়, সিলভার ও কপার জরির কাজের খুব ডিমান্ড।আর ডিজাইন?
ডিজাইনার সোমা- সবসময় নতুন কিছু করতে থাকি। এবারের পুজো স্পেশাল নেকলেস নকশা। ব্ল্যাক সিল্কে বিশেষ বিশেষ প্লেসমেন্টে সিলভার জরি দিয়ে নেকলেসের মোটিফ করেছি। আবার রেড স্যাটিন সিল্কে গোল্ডেন জরি দিয়ে আলপনার ঢঙে কাজ করেছি। এটা কিন্তু পিওর জারদৌসি ওয়র্ক। পুজোর পার্টি জমাতে তো বটেই, এমন অফবিট একটা ডিজাইনার শাড়ি আপনার ওয়ার্ডরোবে থাকলে আপনি যেকোনও নিমন্ত্রণ সন্ধ্যার মধ্যমণি হয়ে উঠবেন।কোন শাড়ির সঙ্গে কেমন ব্লাউজ আর অ্যাক্সেসরি লাগবে তা কি আপনি সাজেস্ট করে দেন?
ডিজাইনার সোমা- দিই। তবে আমার যে শাড়ির ছবি আপনারা দেখছেন সেই ফোটোশ্যুটে মেকআপ ও স্টাইলিং করেছেন কৌশিক-রজত। ওঁদেরও ফলো করতে পারেন।সবশেষে জিজ্ঞেস করি আপনার শাড়ির দামের রেঞ্জ কেমন?
ডিজাইনার সোমা- সিল্ক, স্যাটিন বা পিওর অরগ্যাঞ্জা নিতে গেলে তো বাজেট বেশি হবেই। কিন্তু আমার কাছে কটন, হ্যান্ডলুম, বেনারসের নানারকম এক্সক্লুসিভ শাড়ি আছে যার দাম সকলের আয়ত্তের মধ্যে। তাই পুজোর এই শেষ মুহূর্তের শপিংয়ে হাত বাড়াতে পারেন আমার পুজো কালেকশনে।
You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.