HeaderDesktopLD
HeaderMobile

জ্যাকেটে জড়ানো মাস্ক, ম্যাক্সি ড্রেস বা আনারকলি, পুজো ফ্যাশন ঢিলেঢালা

0 45

চৈতালী চক্রবর্তী

এবারের পুজোয় জমকালো, টাইট ফিটিংস পোশাকের চেয়ে ঢিলেঢালা কমফর্টেই চোখ টানবে বেশি। পছন্দের তালিকায় তাই জাম্প স্যুট, ম্যাক্সি ড্রেস ‘ইন’। ছেলেদের পোশাকে বান্দি জ্যাকেট লেটেস্ট ট্রেন্ড। জ্যাকেটের সঙ্গে ব়্যাপ অ্যারাউন্ড মাস্ক এবারের পুজোয় একদম টাটকা, বললেন কলকাতার নামজাদা ফ্যাশন ডিজাইনার অভিষেক দত্ত।

ছিমছাম ম্যাক্সি ড্রেস না জাম্প ম্যাজিক

বোহো ভাইব তৈরি করতে আর্দি টোনের ম্যাক্সি ড্রেসের জুরি নেই। এর সঙ্গে নানা রকম বিড দেওয়া জুয়েলারি বেশ খোলে। উজ্জ্বল প্রিন্টের ম্যাক্সি ড্রেসও কমবয়সিদের বেশ পছন্দ। তবে এর সঙ্গে অ্যাকসেসরিজ থাকবে কম। অনেকেই ম্যাক্সি ড্রেসের উপরে জ্যাকেট চাপিয়ে ডিফারেন্ট লুক আনেন, সেটাও বেশ দেখায়, বললেন অভিষেক।

সন্ধের অনুষ্ঠানে সাটিনের ম্যাক্সি ড্রেস পারফেক্ট অপশন। এবার যেহেতু কাছাকাছির মধ্যেই ঘোরা হবে, তাই পোশাক সাধারণ, কমফর্টেবল হলেই ভাল। পেল গ্রে বা বেজের মতো কোনও ইংলিশ রঙে কয়েক লেয়ারের পা পর্যন্ত ম্যাক্সি ড্রেস বদলে ফেলতে পারে লুকটাই। মুখে হাল্কা মেক-আপ। সেই সঙ্গে কন্টেম্পোরারি গয়নার সাজ। পুজোতে আপনিই হয়ে উঠবেন ফ্যাশনিস্তা।

অভিষেক বললেন, জাম্প স্যুটও বেশি চলবে এবার। লুজ ড্রেস বা আনারকলিতেই ওয়ার্ড্রব ভরাবে জেন ওয়াই। ফিটিংস পোশাক এ সময়ের জন্য এক্কেবারে আউট অফ ফ্যাশন। জিন্স-টিন্স ছেড়ে অনায়াসে ঘুরে বেড়ানো যায় লুজ-ফিট কোনও ধোতি প্যান্ট বা পাতিয়ালা পরেই। ‘ফিল-গুড’ ভাবই হল আসল ফ্যাশন। যে পোশাকে যত আরাম, সেটাই তত ট্রেন্ডি।

কনট্র্যাস্ট ফ্যাশনেই পুজো হিট

মেল ফ্যাশন বলতে এবারে কুর্তা-জ্যাকেট ভালই চলবে। কুর্তা বা শার্টের উপরে বান্দি জ্যাকেট গলিয়ে নিলেই হল। এবারকার ফ্যাশনে ইন অরেঞ্জ, নিয়ম গ্রিন, ফুসিয়া পিঙ্ক। রঙের বাজারে ফ্লুরোসেন্ট গ্রিন, ইলেকট্রিক ব্লু, অ্যাপল গ্রিন, কোরাল পিঙ্ক, রুবি রেড, ভাইব্র্যান্ট ইয়েলো কখনওই পুরনো হয় না। তবে সাবেকি সাজে ফ্লুরোসেন্ট রং ব্যবহার না করাই ভাল। সামঞ্জস্য রেখে নিয়নের সাজ নজর কাড়বে।

ফ্যাশনে এক্সপেরিমেন্ট সবসময়েই কাম্য। কনট্রাস্ট ফ্যাশনে অনেক আকর্ষণীয় হয়ে উঠতে পারেন পুরুষ বা নারী। অভিষেক বললেন, ইন্দো-ওয়েস্টার্ন পোশাক এবার বেশি চলবে। ছেলেদের শার্টের সঙ্গে কনট্র্যাস্ট রঙের জ্যাকেট অথবা মেয়েরাও শার্ট বা কুর্তির সঙ্গে ভিন্ন রঙের জ্যাকেট চাপিয়ে নিলেই কমপ্লিট লুক আসবে।

শর্ট স্যুটও এবারের পুজোয় ট্রেন্ডি। আন্তর্জাতিক ফ্যাশনের ব়্যাম্পেও ভাল চলছে শর্ট স্যুট। ঢিলেঢালা স্টাইলের এই পোশাক এখন সুপারহিট। ডেনিম থেকে ফুলেল ছাপওয়ালা কাপড় সবেতেই চলতে পরে এই পোশাক। শর্ট স্যুট আসলে আমেরিকান স্টাইল। এবারের পুজোতেও অনেকেই বেছে নিতে পারেন এই পোশাক। ঠিক মতো ক্যারি করতে পারলে পঞ্চাশ বছরের মহিলাও এই পোশাক পরতে পারেন। সেই সঙ্গে কোমরে পাতলা বেল্ট পরলে ফরমাল লুক চলে আসে। এই ধরনের সাজের সঙ্গে লুক হবে মিনিমালিস্টিক। অর্থাৎ মেক-আপ কম, গয়নাগাঁটিও কম।

জ্যাকেটের সঙ্গে ব়্যাপ অ্যারাউন্ড মাস্ক

“নানা রকম মাস্ক নিয়ে এবার কাজ করছি আমরা। যেহেতু এবারের পুজোয় মাস্কই প্রধান অ্যাকসেসরিজ তাই নানা রকম প্রিন্টেড মাস্ক, পোশাকের সঙ্গে ম্যাচিং নানা রঙের মাস্ক, এমব্রয়ডারির কাজ ডিজাইন করেছি আমরা, “বললেন অভিষেক। ইন্দো-ওয়েস্টার্ন পোশাকের সঙ্গে স্টাইলিশ মাস্কই বেশি খুঁজছেন লোকজন। তাই সেই চাহিদা মাফিক নানারকম ডিজাইনের মাস্ক তৈরি হচ্ছে।

অভিষেক বললেন, জ্যাকেটের সঙ্গে ব়্যাপ অ্যারাউন্ড মাস্ক এবারের লেটেস্ট ফ্যাশন। জ্যাকেটও থাকবে আর তার সঙ্গে বিল্ড-ইন মাস্কও থাকবে। পুরুষদের জ্যাকেট ও মহিলাদের ড্রেসের সঙ্গে এমন বিল্ড-ইন মাস্ক এবার বানানো হয়েছে, জানিয়েছেন অভিষেক। ম্যাচিং ফ্যাব্রিকের থ্রি লেয়ার্ড মাস্কও তৈরি হচ্ছে। শাড়ি বা ওয়েস্টার্ন পোশাকের সঙ্গে মানানসই মাস্ক ডিজাইন করা হয়েছে। অভিষেক বললেন, পোশাকের সঙ্গে জোড়া মাস্ক কিছুক্ষেত্রে ডিটাচও করা যাবে। মাস্কের আকার হবে ছোট ব্যাগের মতো। প্রয়োজনে তার মধ্যে মেকআপের জিনিস বা খুচরো সামগ্রী রাখা যেতে পারে। শাড়ি আর ব্লাউজের সঙ্গে ম্যাচিং এবং কনট্র্যাস্ট রঙের মাস্কও তৈরি করছেন বলে জানালেন অভিষেক। প্রিন্টেড লিনেন আর কটনের থ্রি লেয়ার্ড মাস্ক এবার পুজোয় সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করা হবে।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.