HeaderDesktopLD
HeaderMobile

পুজোর আগে শিখে নিন খোঁপা বাঁধার পাঁচটি সহজ উপায়

0 1,310

কথায় আছে, যে রাঁধে সে চুলও বাঁধে। বঙ্গনারীর জীবনে চুলের গুরুত্ব যে কতখানি, তা বলে বোঝানোর প্রয়োজন হয় না। এখন কথা হল চুল নিয়ে স্টাইল করবেন কী করে? চুল বাঁধা না খোলা, কোন অনুষ্ঠানে কেমন করে সাজলে আরও আকর্ষণীয় লাগবে? আসলে মেয়েরা চুল নিয়ে একটু বেশিই স্পর্শকাতর! মুখের সঙ্গে মানাসই চুলের সাজ না হলে, স্টাইলটাই অসম্পূর্ণ থেকে যায়। তাই চুলের স্বাস্থ্য ঠিক রাখা যেমন জরুরি, তেমনি চুল বাঁধার ব্যাপারেও কিছুটা যত্নশীল হতে হবে আপনাকে।

প্রতিবছরই কেশসজ্জার নানারকম ‘ট্রেন্ড’ আসে বাজারে, আবার চলেও যায়। তাহলে কি এমন কিছুই নেই যা চিরন্তন? নিশ্চয়ই আছে। চুল বাঁধার যদি কোনো ইতিহাস থেকে থাকে তাহলে ‘খোঁপা’ হল সেই ইতিহাসে ভিত্তি। যে কোনও অনুষ্ঠানে, যেমন খুশি পোশাকের বাহারে ‘খোঁপা’ ঠিক মানিয়ে যায়। সে চুড়ো করে বাঁধা খোঁপাই হোক বা নীচু করে বাঁধা আলতো হেলানো খোঁপা, আভিজাত্যে আর আবেদনে কারও থেকে কম যায় না।

আজকালকার হাল ফ্যাশনের পনিটেল থেকে শুরু করে এলোমেলো টপ নট্ – যাই হোক না কেন ‘খোঁপা’র আবেদনের কাছে সকলেই ডাহা ফেল। এমনকি সিনেমাজগতের তারকারাও তাঁদের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে স্টাইল স্টেটমেন্ট হিসাবে এখনও বেছে নেন উঁচু-নীচু নানারকম খোঁপার ধরন। ফ্যাশন শোয়ের রানওয়েতে হাঁটার সময়ও তারকাদের কেশসজ্জায় খোঁপার উপস্থিতি নজর কাড়বেই।

চুলকে সিল্কি, নরম, এবং হালকা ভেজা ভেজা রেখে খোঁপা বাঁধার সহজ উপায়

প্রয়োজনীয় জিনিস:
১। চিরুনি
২। চুল বাঁধার গার্ডার
৩। ববি পিন
৪। চুলের জেল বা পোমড বা কেশরাগ

প্রথম ধাপ:
শ্যাম্পু করার পর কন্ডিশনার লাগিয়ে তারপর ভাল করে চুল শুকিয়ে নিতে হবে, যাতে চুল নরম আর জটমুক্ত থাকে। চুলে যাতে জট না থাকে, তার জন্য চুলে অ্যান্টি ফ্রিজ সেরাম লাগিয়ে নিতে হবে। বিশেষত কোঁকড়া চুলের ক্ষেত্রে অ্যান্ট ফ্রিজ সেরাম খুবই কার্যকরী ভূমিকা নেয়।

দ্বিতীয় ধাপ:
কোন অনুষ্ঠানে যাওয়া হবে এবং কী ধরনের পোশাক নির্বাচন করা হবে তার ওপর অনেকটাই নির্ভর করে চুলের খোঁপার চেহারা। উঁচু চুড়ো-খোঁপা হবে, না ঘাড়ের কাছে নীচু খোঁপা সেটা অনেকটাই ঠিক হয় পোশাকের চরিত্র বুঝে। খোঁপা বাঁধার জন্য চুল পুরোপুরি শুকিয়ে গেলে আগে মাঝখান দিয়ে সিঁথি করে, আগাগোড়া ভালোভাবে আঁচড়ে নিতে হবে।

Comb Images | Free Vectors, Stock Photos & PSD

তৃতীয় ধাপ:
চুল বাঁধার আগে হেয়ার জেল বা কেশরাগ বা পোমড লাগিয়ে নিতে হবে। অনেকের ক্ষেত্রে কেশরাগ বেশি উপকারি হয় সাধারণ হেয়ার জেলের থেকে। চুলকে নরম এবং সিল্কি করে তোলে।

চতুর্থ ধাপ:
এরপর পুরো চুলটাকে পেছনের দিকে টেনে নিয়ে গিয়ে যেখানে বাঁধতে চাইছেন, ঠিক সেখানে প্রথমে একটা পনিটেল করে নিতে হবে। তারপর একটু একটু করে গুটিয়ে খোঁপার আকার পাবে চুল। শুরুতেই রাবার ব্যান্ড দিয়ে চুলের গোড়ার অংশটা ভাল করে বেঁধে নেওয়া যায়। আর চুল যাতে খুলে না যায় তার জন্যে ববি পিন দিয়ে খোঁপার চারপাশটা সাবধানে আটকে নিতে হবে।

How-To Video - Sleek Low Bun | Aveda Australia E-Commerce Site

পঞ্চম ধাপ:
এবার সব শেষে অনুষ্ঠানে যাওয়ার আগে নিজেকে আরও একবার দেখে নিন। চুলের সামনেটা আরেকবার আলতো হাতে চিরুনি দিয়ে আঁচড়ে নিন। ব্যাস, আপনার কেশসজ্জা সম্পূর্ণ।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.