HeaderDesktopLD
HeaderMobile

পুজোর শেষ কেনাকাটার আগে চোখ থাকুক বিএন ঘাঁটির শাড়ির সম্ভারে

0 421

পল্লবী ঘোষ

‘ক্ষীরের পুতুল’ পড়ার সময় অধিকাংশ মেয়েই  মনে মনে ভাবত যদি “আকাশের মত নীল, বাতাসের মত ফুরফুরে, জলের মত চিকন শাড়ি পাই” তাহলে বোধহয় রানির মত সাজা যাবে।

শাড়ি আর নারী এক অবিচ্ছেদ্য সম্পর্ক। যেসব মেয়েরা শাড়ি পরতে ভালবাসেন, তাদের মনস্তত্ত্ব ঘাটলে বুঝবেন, তাদের মনের অবস্থা যখন যেমন থাকে, তখন তারা তেমন রঙের শাড়ি পরতে পছন্দ করেন। যেমন মনখারাপে তেজপাতা রঙের শাড়ি, খুশির দিনে হলুদ। একটা একটা ঋতু বদলায়, আর তারা এক একটা আলাদা রঙ বেছে নেন শাড়ির জন্য।

পুজোর আর মাত্র ৭ দিন বাকি। কাজের চাপে এখনও হয়তো অনেকেরই কিচ্ছু কেনাকাটা হয়নি। নিজের জন্য তো নয়ই, এমনকি পরিবারের জন্যও হয়নি। আর এই করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে অনেকেই এ-দোকান সে-দোকান ঘুরে ঘুরে কেনাকাটা করতে ভয় পাচ্ছেন। তাদের সকলের জন্য সেরা হল আসানসোলের বিএন ঘাঁটি। এক দোকানে আসলেই আপনাদের পরিবারের সকল সদস্যদের জন্য কেনাকাটা করতে পারবেন।

বিএন ঘাঁটির কর্ণধার সৌমিত্র ঘাঁটি ও সোমনাথ ঘাঁটির জানালেন, লকডাউনের কারণে দোকান দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পরে আবার খুলেছে। ভিড়ও হচ্ছে খুব। পুজোর কেনাকাটার সময়ে বিয়ের কেনাকাটাও চলছে একসঙ্গে। তাঁরা ভেবেছিলেন এবার পুজোয় হয়তো হালকা নরম রঙের শাড়ি কিনবেন সকলে। কিন্তু অন্যবারের মত এবারও রঙিন উজ্জ্বল রঙের শাড়ি বেশি প্রেফার করছেন মানুষ।

সোমনাথ ঘাঁটি জানান, মেয়েদের জন্য শাড়ি বাদেও আছে লেহেঙ্গা, আনারকলি, গাউন। ছেলেদের জন্য নানারকম পাঞ্জাবি, শেরওয়ানি, টি-শার্ট। ছোটদের জন্য ফ্রক, ওয়েস্টার্ন ড্রেস এই সমস্ত ধরনের পোশাক বি.এন ঘাঁটিতে পেয়ে যাবেন।

কেনাকাটার আগে এক নজরে দেখে নিন আসানসোল বি.এন ঘাঁটি-র পুজোয় মেয়েদের শাড়ির সম্ভার।

বালুচরী শাড়ি: সবুজ-লাল বালুচরীর সারা শাড়িতে কাজ। আঁচল, কুচিতে কাজ আলাদা। পাটলিপাল্লু ডিজাইনের এমন বালুচরী সচরাচর দেখা যায় না। বিয়ে হোক পুজোর অষ্টমীর রাত, যেকোন অনুষ্ঠানের জন্য এমন একটা শাড়ি আপনার কালেকশনে রাখা উচিত।

ডিজিটাল প্রিন্টের সিল্কের শাড়ি: পিওর সিল্কের উপর ডিজিটাল প্রিন্টের নানান নকশা। শাড়ির গুণগত মান নিয়ে তো কোন প্রশ্নই নেই। কিন্তু শাড়ির কাজ দেখলে একেবারে চোখ ধাঁধিয়ে যাবে। নরম, হালকা এমন শাড়ি যেকোন বয়সের মহিলারাই  পছন্দ করবেন।

জামদানী: জামদানী শাড়ির আবেদন চিরন্তন। লিনেন জামদানী হোক ঢাকাই জামদানী, এই শাড়ির প্রতি মেয়েদের ভালবাসা এখনও একই রকম। এই দোকানে এলে আপনারা যদিও একটু অন্যরকম জামদানি শাড়ি পাবেন। কালেকশন দেখে তো মুগ্ধ হবেনই।

তসর বেনারসী শাড়ি: এবছর শাড়ির ফ্যাশনে তসর বেনারসীর ট্রেন্ড এক নম্বরে। বিএন ঘাঁটিতেও আছে এর বিপুল সম্ভার। আসল তসর সিল্কের শাড়ির দু’পাড়ে বেনারসী কাজ। আঁচলেও তেমন কাজ। এই শাড়ির সঙ্গে মানানসই গয়না পরে সাজতে হবে পারলে আপনার দিক থেকে চোখ ফেরানো মুশকিল।

পৈঠানি শাড়ি: আসানসোল বি.এন ঘাঁটির অন্যতম আকর্ষণ এই শাড়ি। একেবারে পুরনো দিনের জমিদার বাড়ির মহিলাদের শাড়ির মতো, সারা শাড়িতে কাজ করা। নানারকম রঙের মিশেল দেখলে চোখ ধাঁধিয়ে যাবে। শাড়িতেও এমন কাজ করা যায় না দেখলে বিশ্বাস করবেন না।

কাঁথা-স্টিচের শাড়ি: বয়স্করা তো এই শাড়ি পছন্দ করেনই। তবে বি.এন ঘাঁটির কাঁথা স্টিচের শাড়ির কালেকশন দেখলে কমবয়সিদেরও কিনতে ইচ্ছে করবে। নানা রঙের সুতোর কাজ করা রঙিন শাড়িটি দেখে সব বয়সি মহিলারাই কতক্ষণে সাজবেন সেই কথাই ভাববেন।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.