HeaderDesktopLD
HeaderMobile

মা দুর্গার ন’টি রূপ কী কী, নবরাত্রির কোন দিনে কোন দেবী পূজা পান

0 515

নবদুর্গা হল মা পার্বতীর নবশক্তি বা দেবী দুর্গার ন’টি রূপ। এই দেবীরা হলেন শৈলপুত্রী, ব্রহ্মচারিণী, চন্দ্রঘণ্টা, কুষ্মাণ্ডা, স্কন্দমাতা, কাত্যায়নী, কালরাত্রি, মহাগৌরী ও সিদ্ধিদাত্রী৷ নবরাত্রিতে ন’দিন ধরে মা দুর্গার এই ন’টি রূপের আরাধনা করা হয়। বছরে চারটি নবরাত্রি থাকলেও, ভারত ও নেপালে মূলত পালন করা হয় চৈত্র নবরাত্রি ও শারদ নবরাত্রি। এর মধ্যে আবার সাড়ম্বরে পালন করা হয় শারদ নবরাত্রি।

শরৎকালের নবরাত্রিতে প্রতিদিন দেবী দুর্গার এক একটি রূপকে পূজা করা হয়৷ সারা বিশ্বের সনাতনধর্মীরা অত্যন্ত আড়ম্বর সহকারে নবরাত্রি পালনে ব্রতী হন। এই ন’দিন রাতে ভক্তেরা উপবাস করেন। প্রত্যেক দেবীকে আলাদা ও বিশেষ খাদ্যবস্তু অর্পণ করা হয়।

নবরাত্রির প্রথম দিনে বিশেষ পূজা পান দেবী শৈলপুত্রী

মা দুর্গার প্রথম রূপ হলেন দেবী শৈলপুত্রী। নবরাত্রির প্রথম দিনে তাই মা শৈলপুত্রীর আরাধনা করা হয়। দেবী দুর্গার আদি রূপ হলেন মা সতী। তিনিই হিমালয়ের কন্যা পার্বতী। সংস্কৃতে পাহাড়কে বলা হয় শৈল, তাই দেবী দুর্গার প্রথম রূপের নাম শৈলপুত্রী। দেবী শৈলপুত্রী দ্বিভুজা। তাঁর এক হাতে থাকে ত্রিশূল, অন্য হাতে থাকে পদ্ম। তাঁর বাহন হল নন্দী নামের একটি বৃষ। পুরাণ থেকে জানা যায় দেবী শৈলপুত্রী হৈমবতী রূপ ধারণ করে দেবতাদের দর্পচূর্ণ করেছিলেন। দেবী শৈলপুত্রীর আরাধনা করলে ভক্তদের শরীর সুস্থ থাকে। শরীর হয় ব্যাধিমুক্ত। নবরাত্রিতে দেবী শৈলপুত্রীর বিশেষ প্রসাদ হল খাঁটি ঘি।

Sailaputri | Durga goddess, Durga, Navratri images

নবরাত্রির দ্বিতীয় দিনে বিশেষ পূজা পান দেবী ব্রহ্মচারিণী

শিবের এক বিশেষ রূপ শংকরকে পতি হিসেবে পাওয়ার জন্য দেবর্ষি নারদের পরামর্শে কয়েক হাজার বছর ধরে কঠোর তপস্যা করেছিলেন দেবী। পার্বতীর সেই তপস্বিনী রূপেরই প্রকাশ ঘটেছে দেবী ব্রহ্মচারিণীর মধ্যে। দ্বিভুজা দেবী ডান হাতে ধারণ করে আছেন রুদ্রাক্ষের মালা এবং বাম হাতে কমণ্ডলু।

Brahmacharini devi earned her name from... - UMD Hindu Students Council |  Facebook

এই দেবীকে উপাসনা করলে মানুষের মধ্যে সংযম, ত্যাগ, বৈরাগ্য ও সদাচার বৃদ্ধি পায়। কঠিন আঘাতেও বিচলিত হয় না মন। সাধক সিদ্ধিলাভ করেন। সংসারী মানুষের পরিবারের সকল সদস্য দীর্ঘায়ু লাভ করে। দেবী ব্রহ্মচারিণীর বিশেষ প্রসাদ হল চিনি।

নবরাত্রির তৃতীয় দিনে বিশেষ পূজা পান দেবী চন্দ্রঘণ্টা

নবরাত্রির তৃতীয় দিনের মূখ্য পূজনীয় দেবী হলেন দেবী চন্দ্রঘণ্টা। এই দেবীর গায়ের রঙ কাঁচা সোনার মতো। বাঘের পিঠে আসীন এই দেবীর মাথায় থাকে অর্ধচন্দ্র। তাই দেবীর নাম চন্দ্রঘণ্টা। দশভুজা দেবী চন্দ্রঘণ্টার আটটি হাতে থাকে কমণ্ডলু, তরবারি, গদা, ত্রিশূল , ধনুর্বাণ, পদ্ম ও জপমালা। বাকি দুটি হাত অভয়মুদ্রা ও জ্ঞানমুদ্রা প্রকাশ করে।

Navratri special Day 3: Jai Maa Chandraghanta (see pics) | Durga goddess,  Durga, Hindu art

অসুর, রাক্ষস, দানব ও দৈত্যদের বুকে কাঁপন ধরায় মা চন্দ্রঘণ্টার বজ্রসম নিনাদ। মঙ্গলময়ী এই দেবী অশুভশক্তির বিনাশ করেন। ভক্তদের সমস্ত জাগতিক জ্বালা যন্ত্রণা দূর করেন দেবী চন্দ্রঘণ্টা। এই দেবীর বিশেষ প্রসাদ হল ক্ষীর বা পায়েস।

নবরাত্রির চতুর্থ দিনে বিশেষ পূজা পান দেবী কুষ্মাণ্ডা

নবরাত্রির চতুর্থীর দিন দেবী কুষ্মাণ্ডার বিশেষ পূজার্চনা করা হয়। মহাপ্রলয়ের পরে সমগ্র জগৎকে যখন গ্রাস করেছিল নিশ্ছিদ্র অন্ধকার, দেবী কুষ্মাণ্ডা তখন সৃষ্টি করেছিলেন ব্রহ্মাণ্ড। জগতের সমস্ত অশুভকে গ্রাস করে জগতসংসারকে আলোকিত করে তুলেছিলেন। পুরাণে বলা হয় “কুৎসিত উষ্মা সন্তাপস্তাপত্রয়রূপো যস্মিন সংসারে। স সংসারে অণ্ডে উদর রূপায়াং যস্যাঃ।।” শ্লোকটির মর্মার্থ, জগতের সকল কুৎসিত, উষ্মা ও সন্তাপকে যিনি তাঁর উদরে ধারণ করে সংসারকে যন্ত্রণামুক্ত করে চলেছেন তিনিই কুষ্মাণ্ডা।

Maa Kushmanda is worshipped on Navratri's fourth day | Indian Mythology

দেবী কুষ্মাণ্ডা ত্রিনয়নী এবং অষ্টভুজা। আট হাতে দেবী ধারণ করে আছেন কমণ্ডলু, পদ্ম, চক্র, ধনুর্বাণ, গদা, জপমালা ও অমৃতপূর্ণ কলস। কুষ্মাণ্ডা দেবী সিংহবাহিনী। কৃচ্ছ্রসাধনের দ্বারা দেবী কুষ্মাণ্ডার আরাধনা করলে সাধক ব্রহ্মজ্ঞান লাভ করেন। সংসারী ভক্তের কাছে মা কল্পতরু হয়ে ওঠেন। সবার সকল মনোবাঞ্ছা পূরণ করেন দেবী কুষ্মাণ্ডা। মায়ের আরাধনায় গৃহী ভক্তের মেধা, বুদ্ধি ও সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা বাড়ে। দেবী কুষ্মাণ্ডার বিশেষ প্রসাদ হল মালপোয়া।

নবরাত্রির পঞ্চম দিনে বিশেষ পূজা পান দেবী স্কন্দমাতা

নবরাত্রির পঞ্চম দিনে বা পঞ্চমীতে দেবী স্কন্দমাতার আরাধনা করা হয়। এই দেবী ধরায় প্রকাশিত হয়েছেন দেবসেনাপতি কার্তিকের জননী রূপে। চতুর্ভুজা এই দেবী দুই হাতে ধারণ করে আছেন দুটি পদ্ম এবং বাকি দুটি হাতে ঘণ্টা ও কমণ্ডলু। দেবী পদ্মের উপর বসে আছেন, তাঁর কোলে শিশু কার্তিক। কার্তিকের বিভিন্ন নাম আছে, যেমন মহাসেন, কুমার, গুহ্য। সে রকমই একটি নাম হল স্কন্দ। তাই এই দেবীর নাম স্কন্দমাতা। ছ’বছর বয়সে কার্তিক তাঁর মায়ের কাছ থেকে অস্ত্রশিক্ষা নেন। পুত্র ও জননী মিলে তারকাসুরকে বধ করেন। তাই এই মূর্তিতে জননী ও পুত্র একত্রে পূজিত হন। দেবী স্কন্দমাতার বিশেষ প্রসাদ হল কলা।

भक्तों के मोक्ष का द्वार खोलती हैं देवी स्कंदमाता

নবরাত্রির ষষ্ঠ দিনে বিশেষ পূজা পান দেবী কাত্যায়নী

নবরাত্রির ষষ্ঠীতে পুজো করা হয় দেবী পার্বতীর অন্যতম ভয়ঙ্করী রূপ দেবী কাত্যায়নীকে। বৈদিক যুগের ঋষি কাত্যায়নের কন্যা লাভের ইচ্ছে হয়েছিল। তিনি দেবী পার্বতীকে কন্যা হিসেবে পাওয়ার জন্য তপস্যা করেছিলেন। তপস্যায় তুষ্ট হয়ে দেবী পার্বতী কাত্যায়নের কন্যা রূপে জন্ম নিয়েছিলেন। তাই এই দেবীর নাম কাত্যায়নী। যোদ্ধা বা যোধাদেবী নামেও বাংলার বাইরে পরিচিত এই দেবী। সিংহবাহিনী দেবী কাত্যায়নী চতুর্ভুজা। চার হাতের মধ্যে দুটি হাতে দেবী ধারণ করে আছেন তরবারি ও পদ্ম। বাকি দুটি হাত রেখেছেন অভয় ও বরদা মুদ্রায়। নিষ্ঠাভরে দেবী কাত্যায়নীর আরাধনা করলে দূর হয় জন্ম-জন্মান্তরের পাপ। দেবী কাত্যায়নী একই সঙ্গে ভক্তের রোগ ও শোক দূর করেন এবং অন্তর্নিহিত সাহস জাগ্রত করেন। দেবী কাত্যায়নীর বিশেষ প্রসাদ হল মধু।

Navratri 2017: Day 6 - Worship Devi Katyayani for blissful married life |  Spirituality News | Zee News

নবরাত্রির সপ্তম দিনে বিশেষ পূজা পান দেবী কালরাত্রি

নবরাত্রির সপ্তমীতে পুজো করা হয় দেবী কালরাত্রির। পুরাণে বলে, দানবদের দমন করার জন্য ত্বকের বর্ণ পরিবর্তন করে কৃষ্ণবর্ণা হয়েছিলেন দেবী দুর্গা। অবতীর্ণ হয়েছিলেন দেবী কালরাত্রি। অতীব ভয়ঙ্করী এই দেবী। আলুলায়িত কেশে দেবী কালরাত্রি গর্দভের উপর বসে থাকেন। এই দেবী ত্রিনয়নী ও চতুর্ভুজা। চার হাতের দুই হাতে ধারণ করেন বজ্র ও খড়্গ। অন্যদুটি হাত থাকে অভয় ও বরদা মুদ্রায়। কণ্ঠে ঝোলে বিদ্যুতের মালা। অর্থাৎ দেবী কালরাত্রি দুষ্টের দমন ও শিষ্টের পালন করবার জন্যই আবির্ভূতা হয়েছেন। এই দেবীর আরাধনা করলে সকল বাধা বিপত্তি, যন্ত্রণা দূর হয়। জীবনে ফিরে আসে হারানো আনন্দ। এই দেবীর বিশেষ প্রসাদ গুড়।

Navratri 2017: Day 7 - Destroy ignorance by worshipping Devi Kalratri |  Spirituality News | Zee News

নবরাত্রির অষ্টম দিনে পূজা পান দেবী মহাগৌরী

নবরাত্রির অষ্টমীতে পুজো করা হয় দেবী মহাগৌরীকে। পুরাণ থেকে জানা যায়, হিমালয়দুহিতা পার্বতী ছিলেন গৌরবর্ণা। কিন্তু শিবকে পতি হিসেবে পাওয়ার জন্য প্রখর রৌদ্রে তপস্যা করায় তিনি কৃষ্ণবর্ণা হয়ে গিয়েছিলেন। দেবাদিদেব মহাদেব তখন পার্বতীকে গঙ্গাজলে স্নান করিয়ে দেওয়ার ফলে গৌরবর্ণ ফিরে পেয়েছিলেন পার্বতী। তাই দেবী পার্বতীর এই রূপের নাম মহাগৌরী। শ্বেত বস্ত্রে সুশোভিতা দেবী মহাগৌরীর বাহন হল সাদা ষাঁড়। চতুর্ভুজা দেবীর এক হাত থাকে বরাভয় মুদ্রায়, বাকি তিন হাতে দেবী ধারণ করেন পদ্ম, ত্রিশূল ও ডম্বরু। নবরাত্রির অষ্টম রাতে দেবী মহাগৌরীর পূজা করলে সব পাপের স্খালন ঘটে।

Eighth Day of Navratri or Ashtami is dedicated to the worship of Mata  MahaGauri Dev - Indus Scrolls

নবরাত্রির নবম দিনে বিশেষ পূজা পান দেবী সিদ্ধিদাত্রী

নবরাত্রির নবমীতে পুজো করা হয় দেবী সিদ্ধিদাত্রীর। চতুর্ভুজা দেবী পদ্মের উপর বসে থাকেন। তাঁর চার হাতে থাকে শঙ্খ, চক্র, গদা ও পদ্ম। পুরাণ থেকে জানা যায়, স্বয়ং মহাদেব দেবী পার্বতীর এই সিদ্ধিদাত্রী রূপকে পুজো করেছিলেন। নিষ্ঠাভরে দেবী সিদ্ধিদাত্রীকে পূজা করলে দেবী ভক্তদের সিদ্ধিদান করেন। ভক্তদের সংসার উপচে পড়ে সুখ ও সমৃদ্ধির প্রাচুর্য্যে। এছাড়া সকল জাগতিক দুর্ঘটনা থেকে ভক্তদের সুরক্ষিত রাখেন দেবী সিদ্ধিদাত্রী। এই দেবী সিদ্ধিদাত্রীর বিশেষ প্রসাদ তিল।

Navratri 2019 Maa Siddhidatri Puja Vidhi Mantra and significance

করোনার কারণে এবছর হয়তো মণ্ডপে যেতে বারণ করবেন বাড়ির গুরুজনেরা। তাই সংসারে সুখ ও সমৃদ্ধি আনতে পুরোহিতের সঙ্গে কথা বলে বাড়িতেই নবরাত্রির ব্রতপালন করুন। নিষ্ঠাভরে নবদুর্গার আরাধনা করলে ফল অবশ্যই পাবেন।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.